দেশ সংযোগ

পীরগঞ্জে চাঁদা না দেয়ায় দু’জনকে মারপিটের অভিযোগ পৌর কর্মচারীর বিরুদ্ধে

 
পীরগঞ্জে চাঁদা না দেয়ায় দু’জনকে মারপিটের অভিযোগ পৌর কর্মচারীর বিরুদ্ধে জনসংযোগ

লিমন সরকার, (ঠাকুরগাঁও) জেলা প্রতিনিধি

ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে শ্যালো ইঞ্জিন চালিত ভটভটিতে দ্বিতীয় দফায় চাঁদা আদায়কে কেন্দ্র করে এক চালক সহ দুজনকে মারপিটের অভিযোগ উঠেছে পৌর কর্মচারীর ও তার সহযোগীর বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার দুপুরে পৌর শহরের পূর্ব চৌরাস্তায় এ ঘটনা ঘটে। তবে পৌর কর্তৃপক্ষ বলছেন চাঁদা তোলা নিয়ে মারপিট নয়, যানবাহনের লাইসেন্স করা নিয়ে ধাক্কাধাক্কির ঘটনা ঘটেছে।

ভূক্তভোগীরা জানায়, জেলার হরিপুর উপজেলার ডাঙ্গীপাড়া গ্রামের রেকাব আলীর ছেলে সোহেল রানা শ্যালো ইঞ্জিন চালিত ভটভটি নিয়ে ডিজেল কেনার উদ্দেশ্যে মঙ্গলবার সকালে হরিপুর থেকে পীরগঞ্জ হয়ে দিনাজপুরের সেতাবগঞ্জে যাচ্ছিলেন। যাওয়ার সময় পীরগঞ্জ পৌর শহরে ঢুকলে পৌর সভার চুক্তি ভিত্তিক কর্মচারী লিটন ও তার এক সহযোগী মিলে পৌরসভা ও দুটি শ্রমিক সংগঠনের নামে রশিদ ধরিয়ে দিয়ে ৯০ টাকা ওই ভটভটি চালক সোহেলের কাছ থেকে চাঁদা আদায় করে। চাঁদা দিয়ে ওই ভটভটি চালক সেতাবগঞ্জ গিয়ে ডিজেল নিয়ে হরিপুরে ফেরার পথে পীরগঞ্জ পৌর শহরের পূর্ব চৌরাস্তায় পৌছালে ভটভটি থামিয়ে তার কাছে আবারো ৬০ টাকা চাঁদা দাবী করা হয়। চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় পৌর কর্মচারী লিটন ও তার সহযোগী মিলে ভটভটি চালক সোহেল রানা ও তার গাড়িতে থাকা রুবেল কে মারপিট করে। এ সময় পৌরসভার প্রধান সহকারি নুর মোহাম্মদ চৌধুরী এবং কর্মচারী সংগঠনের সভাপতি তোজাম্মেল হক ঘটনা স্থলে এসে কর্মচারী’র পক্ষ নিয়ে ওই ভটভটি চালক ও তার গাড়িতে থাকা ব্যক্তিকে পৌরসভায় তুলে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এ নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে এবং আহত ওই দুজনকে চিকিৎসার জন্য পীরগঞ্জ হাসপাতালে পাঠায়।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

অভিযোগ বিষয়ে পীরগঞ্জ পৌরসভার কর্মচারী সংগঠনের সভাপতি তোজাম্মেল হক বলেন, কোন চাঁদা জন্য নয়, লাইসেন্সের জন্য ওই ভটভটি চালককে আটকানো হয়েছিল। এ নিয়ে মারপিট নয় দায়িত্বরত কর্মচারীর সাথে ধাক্কাধাক্কি হয়েছে। আমরা বিষয়টি সমাধান করে দেয়ার চেষ্টা করেছি।

পীরগঞ্জ পৌর মেয়র বীরমুক্তিযোদ্ধা ইকরামুল হক জানান, পৌর শহরে টোল আদায়ের বিষয় গুলি দেখভাল করার জন্য পৌরসভার প্রধান সহকারি নুর মোহাম্মদ চৌধুরীকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। তিনিই ভালো বলতে পারবেন।

এ বিষয়ে পৌরসভার প্রধান সহকারি নুর মোহাম্মদ চৌধুরী বলেন, পৌর শহরে ট্রাক-ট্যাংক লড়িতে মালামাল লোড আনলোাড করার ক্ষেত্রে টোল আদায়ের জন্য ইজারা দেয়া হয়েছে। পৌর শহরে প্রবেশ করলেই চাঁদা নেয়ার কোন নিয়ম নাই। মেয়রের সাথে কথা বলে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

পীরগঞ্জ থানার ওসি খায়রুল আলম বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। তবে এ বিষয়ে এখনো লিখিত অভিযোগ পাওয়া যায়নি। পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

 
Back to top button

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker