দেশ সংযোগ

কাউনিয়ায় ব্রীজ নির্মাণ কাজে দূষকৃতির হামলায় প্রকৌশলীসহ শ্রমিক আহত, থানায় মামলা 

 
কাউনিয়ায় ব্রীজ নির্মাণ কাজে দূষকৃতির হামলায় প্রকৌশলীসহ শ্রমিক আহত, থানায় মামলা  জনসংযোগ

কাউনিয়া(রংপুর)প্রতিনিধিঃ

রংপুরের কাউনিয়া উপজেলার এলজিইডির একজন প্রকৌশলী ও শ্রমিকদের মারধর, সরকারি কাজে বাধা প্রদান এবং প্রাণনাশের হুমকির অভিযোগে কাউনিয়া থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান জাকা উল্লাহ এন্ড ব্রাদার্স লিঃ এর ম্যানেজার মোঃ বাদশা আলম বাদী হয়ে ৪ মার্চ রাতে ১০জন ও অজ্ঞাতনামা ৩০-৪০জন কে আসামী করে কাউনিয়া থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলার এজাহার সূত্রে জানাগেছে রংপুরের কাউনিয়া থানাধীন কুর্শা পশ্চিম বাহাগীলি মৌজান্থ আমতলা বাজার সংলগ্ন প্রায় ৩ মাস পূর্বে ব্রীজের নির্মানের কাজ পায় জাকা উল্লাহ এন্ড ব্রাদার্স লিঃ। নির্মান কাজ শুরু করার পর কাজ বন্ধ করার জন্য উঠেপরে লেগেছে একটি চক্রমহল।

গত ২৯/০২/২০২৪ তারিখ রাত আনুমানিক ০৮ ঘটিকার সময় পূর্ব পরিকল্পিতভাবে ২০-৩০জন দলবদ্ধ হয়ে হাতে লাঠিশোঠা, লোহার রড নিয়ে এসে ব্রীজের কাজ বন্ধ করার জন্য শ্রমিকদের বিভিন্ন ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদান করে। লোকজন দেখে সহকারী ইঞ্জিনিয়ার এগিয়ে আসলে একপর্যায়ে সহকারী ইঞ্জিনিয়ার মোঃ ফিরোজ মিয়াকে এলোপাতাড়ী মারপিট করিয়া শরীরের বিভিন্ন স্থানে ছিলাফুলা জখম করে। পরে ব্রীজ নির্মান করা শ্রমিকগন সহ ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান এর ম্যানেজার মোঃ বাদশা আলম এগিয়ে আসলে এদেরকেও মারপিট শুরু করে এতে অনেক শ্রমিক প্রান ভয়ে পালিয়ে যায়। শ্রমিক মোঃ আকতারুল ইসলাম, শ্রমিক কামাল হোসেন,মোঃ বাবু মিয়াসহ জখম প্রাপ্ত হয়। এতে ম্যানেজার মোঃ বাদশা আলম একপর্যায়ে মাটিতে পড়িয়া গেলে তার প্যান্টের পকেটে থাকা পাথর ক্রয় করার -৬,৬৫৫০০/-টাকা নিয়ে কাজ করিতে দিবে না বলে ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদান করে হামলাকারীরা সটকে পরে। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় আহতদের কাউনিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয় এবং শ্রমিক মোঃ আকতারুল ইসলাম গুরুত্বর জখম প্রাপ্ত হওয়ায় তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পেরণ করা হয়।

এজাহার ভূক্ত ১০ নং আসামী মোঃ আব্দুল মান্নান বলেন,আমি আগে কখনো ওখানে যায়নি সেদিন মারামারির কখা শুনে গিয়ে দেখি কয়েকজন অসুস্থ তাদের দ্রুত হাসপাতালে নিতে সহায়তা করি তার পরেও আমার নামে মামলা দিয়েছে আমি ৩দিন জেল খেটে আসলাম দেখি ঠিকাদার কিভাবে কাজ করে এখানে। এজাহার ভূক্ত আসামীরা গত ২০২১ সালেও আরেক উপ-সহকারী প্রকৌশলী মারধর করলে পরে আর কোনদিন এমন কাজ করবেন না বলে মুচলেকা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়।ঘটনার ব্যাপারে আহত উপ-সহকারী প্রকৌশলী (রংপুর বিভাগ গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্প) মোঃ ফিরোজ মিয়া বলেন সেদিন আমি লোকজন দেখে এগিয়ে গেলে আমাকেও মারডাং করে। আমি স্যারকে বিষয়টি জানানিয়েছি।

কাউনিয়া উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ আসাদুজ্জামান জেমি বলেন, আমাদের প্রকৌশলী ও শ্রমিকদের মারধর, সরকারি কাজে বাধা প্রদান করার কথা উর্ধতন কর্মকর্তাকে অবহিত করেছি উনারা যে নির্দেশনা দিবেন সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নিব। এ ব্যাপারে মামলার তদন্ত অফিসার এসআই মোঃ সাজু মিয়া বলেন অভিযোগ পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে আমরা গিয়েছি। এখন পর্যন্ত তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে বাকিরা পলাতক আছে। অন্যদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত আছে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

 
Back to top button

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker